1. admin@dainikmanobadhikarsangbad.com : admin :
খেশরায় মাছ চাষীদের মাথায় হাত,পানির অভাবে মারা যাচ্ছে মাছ, :: - দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
২৯শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ| ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ| হেমন্তকাল| মঙ্গলবার| রাত ১:২১|
শিরোনামঃ
রামগড়ে শিশুকানন ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন ডিসি প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস পাইকগাছায় ইট-ভাটা জবর দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন মানিকছড়িতে ‘ডিসি পার্কে অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করেন ডিসি প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জিপিএ ৫ পেয়েছে দুই লাখ ৬৯ হাজার শিক্ষার্থী ঠাকুরগাঁওয়ে হানিফ কোচের চাপায় একই পরিবারের ৩ জন নিহত ম্যাগনেট পিলার দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে খেলনা পিস্তলসহ এক নারী আটক। রামগড় ৪৩ বিজিবির উদ্যোগে চিকিৎসা সেবা প্রদান পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে পঙ্কজ সভাপতি,নুর সম্পাদক, রামগড় তথ্য অফিসের আয়োজনে ভিডিও কলের মাধ্যমে উন্মুক্ত বৈঠক নিয়োগ বাণিজ্যের ঘটনায় সকাল ৯ টার পরিবর্তে বিকেল ৩ টায় খুলল মাদ্রাসার তালা

খেশরায় মাছ চাষীদের মাথায় হাত,পানির অভাবে মারা যাচ্ছে মাছ, ::

সাইদুর রহমান আকাশ - তালা প্রতিনিধি
  • Update Time : বুধবার, মে ২৫, ২০২২,
  • 363 Time View

তালার খেশরা ইউনিয়নের সোনা কুঁড়ি, খেশরা বিল, ডুমুরিয়া বিলসহ স্থানীয় কয়েকটা বিলে কাঠফাটা রোদে পানির অভাবে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ মারা যাচ্ছে মাছ চাষীদের।

দীর্ঘদিন ধরে পানি তোলা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে স্থানীয় দুই পক্ষের মধ্যে ভুলবোঝাবুঝির সৃষ্টি হওয়ায় এ সংকট দেখা দিয়েছে। এদিকে এলজিডি বাঁধের আওতায় রেগুলেটরের ঠিকমতো উঠা নামা না হওয়ার ফলে খালে পলি জমা শুরু করেছে যার সরাসরি প্রভাব পড়ছে কপোতাক্ষ নদের উপর।মঙ্গলবার (২৪ মে) সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সোনা কুঁড়ি বিলের গোপাল দাশ, গোবিন্দ দাশসহ বেশ কয়েকজনের ঘেরে পানির অভাবে সাদা মাছ মরে ভেসে উঠেছে। এসময় মাছের চিন্তায় মাছ চাষী গোপাল দাশকে মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকতে দেখা যায়। গোপাল দাশ বলেন, প্রতিটি ঘেরে অনেক টাকার করে মাছ দেওয়া। খালে পানি না থাকায় মাছগুলো সব মরে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় আমাদের বাঁচাতে পানি না তুললে আমরা নিঃস্ব হয়ে যাবো। পানির অভাবে বাগদাও মরে যেতে শুরু করেছে।ডুমুরিয়া গ্রামের নেছার গাজী বলেন, ১২ হাজার টাকা বিঘা প্রতি জমি হারি নিয়ে ধান করেছিলাম। কিন্তু ধানে পোকা লাগায় আমরা ভালো ধান পায়নি। এতে করে মাছ চাষ করতে না পারলে আমাদের অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে। গুটিকয়েক মানুষ নিজেদের স্বার্থের জন্য পানি তুলতে বাঁধা দিচ্ছে। প্রতিবছরই পানি উঠে কিন্তু ধানের কোন ক্ষতি হয় না। আর বিশেষ করে যারা বাঁধা দিচ্ছে তাদের জমিতে পানি তুললেও পানি যায় না। এ বিষয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর স্থানীয় দুই পক্ষ অভিযোগ জমা দিয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি। © প্রকাশক কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত -২০২২
Theme Customize BY BD IT HOST