1. admin@dainikmanobadhikarsangbad.com : admin :
খুলনায় ঈদ উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর ঘর পাচ্ছে ২৩৬ পরিবার - দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ| ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ| শরৎকাল| সোমবার| রাত ৯:২৫|
শিরোনামঃ
মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা আমাদের সকলের দায়িত্ব : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী তালা নব নির্মিত অফিসার্সক্লাব উদ্বোধন করলেন এমপি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ তালায় ১৯৪ পূজা মন্ডপে সরকারি অনুদান বিতরণ প্রতি মন্ডপে থাকছে সিসি ক্যামেরা! দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ আইজিপির সেনাবাহিনীর বহরে যুক্ত হলো দ্বিতীয় Casa C-295W ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফট। পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবে নারী-শিশুসহ ২৪ জনের মৃত্যু পাবনা জেলা গোয়েন্দা শাখার অভিযানে জেলার শীর্ষ মাদক সম্রাট শিমুল হোসেন বাপ্পি কে ৪,৫০০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ গ্রেফতার। শাহজাদপুরে কোরআন শিক্ষা দিতে গিয়ে গৃহবধূর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় আটক মসজিদের ইমাম পাইকগাছায় আইনজীবী মোহতাছিম বিল্লাহর বাসা থেকে ১১ বছরের কন্যাসহ আটক ০৭ গাজাঁ সেবনের অপরাধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর সংশ্লিষ্ট ধারায় ৩ব্যক্তিকে কারাদণ্ড

খুলনায় ঈদ উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর ঘর পাচ্ছে ২৩৬ পরিবার

মোঃ আক্তারুজ্জামান লিটন // খুলনা ব্যুরো।।
  • Update Time : রবিবার, এপ্রিল ২৪, ২০২২,
  • 162 Time View

আগামী ২৬ এপ্রিল ঈদ উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ৩২৯০৪ টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারের হাতে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করবেন। এরই অংশ হিসেবে খুলনা জেলায় ১৪টি রূপসায়, ৬২টি তেরখাদায়, ৩৫টি দিঘলিয়ায়, চারটি ফুলতলায়, ৬৫টি ডুমুরিয়ায়, ৩৬টি পাইকগাছায় এবং দাকোপে ২০টি পরিবারের কাছে জমিসহ ঘর হস্তান্তর করা হবে।

খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার আজ (রবিবার) বিকেলে তাঁর সম্মেলনকক্ষে স্থানীয় ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ও প্রেসব্রিয়িং এ এসকল তথ্য জানান।
প্রেসব্রিফিং এ জানানো হয়, ৩য় পর্যায়ে খুলনার জন্য ০৫টি ধাপে সর্বমোট ৯০৬টি গৃহের বরাদ্দ পাওয়া গেছে এবং গৃহ নির্মাণ কার্যক্রম চলমান আছে। গড় অগ্রগতি ৪৬%। ৩য় পর্যায়ে তেরখাদা উপজেলায় ১১৭ টি, বটিয়াঘাটা উপজেলায় ২৩০টি, ডুমুরিয়া উপজেলায় ১৬৫টি, পাইকগাছা উপজেলায় ৯৭টি, দাকোপ উপজেলায় ৩০টি, দিঘলিয়া উপজেলায় ১০০টি, ফুলতলা উপজেলায় ৮১টি, রূপসা উপজেলায় ৭৬টি এবং কয়রা উপজেলায় ১০টি গৃহের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। ১ম পর্যায়ে প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ ছিল ১,৭১,০০০ টাকা। ২য় পর্যায়ে প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ ছিল ১,৯০,০০০ টাকা। ৩য় পর্যায়ে প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ ২,৫৯,৫০০ টাকা। ২য় পর্যায়ে ৪টি জানালার পরিবর্তে ৫টি জানালা সংযুক্ত করা হয়েছে। ৩য় পর্যায়ে ঘরের বারান্দায় আরসিসি পিলার, ঘরের বেজমেন্টে আরসিসি ঢালাই, গ্রেডবীম ও টানা লিন্টেল সংযুক্ত করা হয়েছে। খুলনায় উপযুক্ত খাস জমির সংস্থান না থাকায় কোন কোন উপজেলায় জমি ক্রয়পূর্বক গৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে। এ প্রেক্ষিতে পাইকগাছায় ৪৭টি ঘরের জন্য ১.০৩ একর, দিঘলিয়ায় ৬৫টি ঘরের জন্য ১.৬৮৭১ একর, ফুলতলায় ৭৭টি ঘরের জন্য ১.৬০ একর এবং রূপসায় ১২টি ঘরের জন্য ০.২৪ একরের জন্য সর্বমোট ২০১টি ঘরের জন্য ৪.৫৫৭১ একর জমি ক্রয় সম্পন্ন হয়েছে।
প্রেসব্রিফিং এ আরও জানানো হয়, খুলনা জেলায় ১ম পর্যায়ে ৯২২ টি গৃহ নির্মাণের কাজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং শতভাগ পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের ২৩ জানুয়ারি ১ম পর্যায়ের জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেছেন। ২য় পর্যায়ে ১৩৫১ টি গৃহের বরাদ্দ পাওয়া যায়। গৃহ নির্মাণের কাজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে এবং শতভাগ পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের ২০ জুন ২য় পর্যায়ের জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন।

জেলা প্রশাসক তাঁর বক্তৃতায় বলেন, খুলনা জেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের পুনর্বাসনের ন্যায় বিশাল কর্মযজ্ঞ সফলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। উপকারভোগী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। পুনর্বাসনের লক্ষ্যে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সরকারি খাস জমি থেকে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হয়েছে। গৃহনির্মাণের ক্ষেত্রে প্রকল্প কার্যালয় কর্তৃক নির্ধারিত ড্রইং, ডিজাইন এবং স্পেসিফিকেশন শতভাগ মেনে চলা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১ম পর্যায়ে ৬৬১৮৯ টি পরিবারের প্রত্যেককে ২ শতক সরকারি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদানপূর্বক একক দ্বি-কক্ষ বিশিষ্ট সেমি-পাকা গৃহ নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। ২য় পর্যায়ে দেশের সকল জেলায় সর্বমোট ৫৩৩৪০ টি পরিবারকে জমিসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রম সমাপ্ত হয়েছে। ৩য় পর্যায়ে দেশের সকল জেলায় সর্বমোট ৬৫ হাজার ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদানের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
ব্রিফিং এ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ সাদিকুর রহমান খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোছাঃ শাহানাজ পারভীন, খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মামুন রেজাসহ ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি। © প্রকাশক কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত -২০২২